জেলা বিএনপির পদযাত্রায় হামলার ঘটনায় মহানগর বিএনপির নিন্দা ও প্রতিবাদ

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:

নারায়ণগঞ্জ জেলা পদযাত্রা কর্মসূচি পালনকালে নেতাকর্মীদের উপর পুলিশের অর্তকিত লাঠিচার্জ টিয়ারশেল ও গুলিবর্ষণ করে নেতাকর্মীদের আহত করেছে বলে অভিযোগ তুলে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি।

শনিবার রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক এড. সাখাওয়াত হোসেন খান ও সদস্য সচিব এড. আবু আল ইউসুফ খান টিপু অভিযোগ তুলে বলেন, সোনারগাঁয়ের কাঁচপুর ব্রিজের সামনে জেলা বিএনপির শান্তিপূর্ণ পদযাত্রা কর্মসূচিতে পুলিশ অহেতুক নেতাকর্মীদের উপর লাঠিচার্জ ও গুলিবর্ষণ করে অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীদের আহত করেছে। গুলিবিদ্ধ ও আহত হয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদসহ ২০জন। মহানগর বিএনপির পক্ষ থেকে আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

তারা আরও বলেন, পুলিশ প্রশাসনকে ব্যবহার করে আর ক্ষমতায় থাকা যাবে না। সরকারের পতন ঘন্টা বেজে উঠেছে। সরকার এখন পালানোর পথ খুঁজছে। এক দফা দাবি বাস্তবায়ন না হওয়ায় পর্যন্ত যত হামলা মামলা হোক না কেনো বিএনপির নেতাকর্মীরা রাজপথ ছেড়ে যাবে না। ইনশাল্লাহ এই সরকারের পতন ঘটিয়ে আমরা রাজপথ ছাড়বো।

উল্লেখ্য- শনিবার বিকেল তিনটায় সোনারগাঁয়ের কাঁচপুর ব্রিজের সামনে নারায়ণগঞ্জ জেলা পদযাত্রা কর্মসূচি পালনকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ টিয়ারশেল ও কয়েক রাউন্ড ফাঁকা রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এতে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সহ-সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদসহ ১০নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে বিএনপি।

আহতদের মধ্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সহ-সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ, সদস্য আজহারুল ইসলাম মান্নান, আড়াইহাজার উপজেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি নাহিদ হাসান, মুড়াপাড়া ইউনিয়ন যুবদলের কর্মী আলামিন মোল্লা, আড়াইহাজার মাহমুদপুর ইউনিয়ন যুবদলের আহ্বায়ক মনির হোসেন সরকারের নাম জানা গেছে। এদের মধ্যে অনেকেই গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে বিএনপির নেতাকর্মীরা জানান।

সর্বশেষ সংবাদ