ইত্তেফাকের সংবাদে তোলপাড়: যুবলীগ কর্মী হত্যার আসামি নৌকার প্রার্থী

সান নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম:

দেশের বহুল প্রচারিত জাতীয় দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার একটি সংবাদে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের রাজনীতিতে তোলপাড় শুরু হয়েছে। পত্রিকাটিতে প্রকাশিত হয়েছে আওয়ামী যুবলীগ কর্মী হত্যা মামলার আসামি নাসির উদ্দীনকে শম্ভুপুরা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক পেয়েছেন। একই সঙ্গে বারদী ইউনিয়ন পরিষেদের বর্তমান চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জহিরুল হককে মনোনয়ন বঞ্চিত করে বিএনপি ঘরণার লায়ন মাহাবুব রহমান বাবুলকে মনোনয়ন দেয়ার বিষয়টিও তুলে ধরা হয়।

এই বাবুলের ছোট ভাই আমিনুল ইসলাম গত নির্বাচনে নৌকাপ্রতীকের প্রার্থীর বিরোধীতা করে বিদ্র্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করেছিলেন। ইত্তেফাকের সংবাদ প্রকাশের পর এই দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করে ত্যাগী ও যোগ্য লোকদের হাতে নৌকা প্র্রতীক তুলে দেয়ার দাবি ওঠেছে জোরেসোরে।

IMG 20211025 185129

২৫ অক্টোবর সোমবার দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার ১৬নং পাতায় ‘বিতর্কিতদের মনোনয়ন দেয়ার অভিযোগ, সোনারগাঁওয়ে যুবলীগ কর্মী হত্যার আসামি, কেরানীগঞ্জে ভূমিদস্যু পেলেন নৌকা’ শিরোনামে সংবাদটি প্রকাশিত হয়। এই সংবাদে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে তুমুল আলোচনা সমালোচনা শুরু হয়েছে। সেই সঙ্গে ক্ষোভ বাড়ছে আওয়ামীলীগ যুবলীগ সহ অন্যান্য অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝেও।

ইত্তেফাকের সংবাদে উল্লেখ করা হয়- তৃতীয় ধাপের আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের মনোনীতি প্রার্থীর তালিকায় রয়েছেন বিতর্কিতরা। এর মধ্যে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় এক ভূমিদস্যূ, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে যুবলীগ কর্মী হত্যা মামলার আসামি এবং রাজবাড়ীতে ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি পেয়েছেন নৌকার মনোনয়ন। এদিকে বিতর্কিতরা মনোনয়ন পাওয়ায় আওয়ামী লীগের তৃণমুল নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ বাড়ছে।

তৃণমুল নেতাকর্মীদের অভিযোগ- বিতর্কিতরা মনোনয়ন নিশ্চিত করতে জেলা ও কেন্দ্রের একশ্রেণির নেতাদের ম্যানেজ করেছেন। এ কারনে মনোনয়ন বোর্ডের কাছে সঠিক সত্য যাচ্ছেনা। কোনো কোনো ইউপিতে ত্যাগীদের বাদ দিয়ে বিতর্কিতদের একক প্রার্থী হিসেবে তৃণমুল থেকে কেন্দ্রে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

সংবাদটিতে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক পাওয়া নাসির উদ্দীন সম্পর্কে লেখা হয়- নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার শম্ভুপুুরা ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন নাসির উদ্দীন। তার বিরুদ্ধে এলাকায় সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ও মাদক কারবারের সাথে জড়িত থাকার এবং নদীর বালু উত্তোলনের অভিযোগ স্থানীয়দের মুখে মুখে। মেঘনা নদীর বালুমহালের নিয়ন্ত্রন নিতে ২০১৫ সালে চর হোগলা গ্রামে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন যুবলীগ কর্মী জামাল হোসেন। নাসির উদ্দীন সেই মামলার আসামি ছিলেন। এ ছাড়াও সোনারগাঁওয়ের বারদী ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন মাহাবুব রহমান। তার পরিবার জড়িত ছিল বিএনপির রাজনীতিতে। ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও দুইবারের ইউপি চেয়ারম্যান জহিরুল হককে মনোনয়ন না দেয়ায় বিস্মিত স্থানীয় নেতাকর্মীরা।